ঢাকা, রবিবার, ০৯ মে ২০২১, , ২৭ রমজান ১৪৪২
Reg:C-125478/2015

করোনা মোকাবেলায় আবার লকডাউন


প্রকাশ: ১৩ এপ্রিল, ২০২১ ১৬:২৫ অপরাহ্ন | দেখা হয়েছে ১১০ বার


করোনা মোকাবেলায় আবার লকডাউন

সুবর্না রানী: গোটা বিশ্ব জুড়ে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়েছে। বাড়তে রয়েছে করোনা সংক্রমন। করোনা টিকা করণ শুরু হলেও কোনভাবেই করোনা সংক্রমণ ঠেকানো যাচ্ছেনা। এই পরিস্থিতিতে ফের লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। ফের লকডাউনে সব থেকে বেশি ক্ষতি হবে নিম্ন আয়ের মানুষের।

গত বছরের লকডাউনে কাজ হারিয়ে বহু মানুষ পথের ভিখারি হয়েছেন ! সরকারী ভাবে সাহায্যে রব্যবস্থা থাকলেও সেটি পর্যাপ্ত ছিলনা কোন ভাবেই। ১৪ই এপ্রিল থেকে কড়া ভাবে যে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে এতে নিম্ন ও মধ্যম আয়ের মানুষের মধ্যে তৈরি হয়েছে অনিশ্চয়তা।

গত বছর সরকারী ভাবে লকডাউন ঘোষণা করার পর একের পর এক কলকারখানা, অফিস, ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়া হয়। সেই সময় ছোট ব্যবসায়ী, শ্রমিক, দিন মজুর শ্রেণীর মানুষের অবস্থা শোচনীয় হয়েছিল। আবার নতুন করে এখনও কাজ জুটাতে পারেনি নিম্ন আয়ের বহু মানুষ। ফলে ফের লকডাউনের ঘোষণা তাদের দুর্দশার চরমসীমায় এনে ফেলতে পারে।

গত বার সরকারীভাবে সাধারন মানুষের জন্য খাবারের ব্যবস্থা করা হয়েছিল।যদিও অনেকের অভিযোগ ছিল, সেই সাহায্য পর্যাপ্ত ছিলনা।ফের লকডাউন চালু হলে, সরকারীভাবে কাজ হারানো মানুষকে খাদ্যের সঙ্গে সঙ্গে নগদ অর্থও দেয়ার কথা বলছেন অর্থনীতিবিদরা। গত বছর বিশ্বব্যাপী করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে একের পর এক লকডাউনের ফলে দারিদ্র্যের হার বেড়েছে। এই বছর এমন করলে অবস্থা আরও খারাপ হবে। সাধারন মানুষের বেচে থাকাটাই মুশকিল হয়ে পরবে।

এমনিতেই গত বছর অধিকাংশ দরিদ্র মানুষ নিজেদের শেষ সঞ্চয় নিঃশেষ করেছেন লকডাউনের সময়। বেশির ভাগ মানুষের নতুন করে ঋণ নেওয়ার মত পরিস্থিতি নেই। এই অবস্থায় সরকার খাবার এবং নগদ অর্থের সংস্থান না করলে ভয়ানক দুর্দিন নেমে আসার আশঙ্কা। গত বছর সরকারীভাবে যে ত্রানের ব্যবস্থা করা হয়েছে সেখানেও ছিল দুর্নীতির ছায়া। হাস্যকর শোনালেও অস্বীকার করার উপায় নেই, ক্ষুধার্তের মুখের খাবার থেকে বঞ্চিত করে অনেকেই বড় লোক হয়েছেন সেই সময়।

গত বারের অভিজ্ঞতা থেকে শিক্ষা নিয়ে আগামি দিনে এই দুর্নীতি থেকে মুক্ত থাকার চেষ্টা না করলে অবস্থা আরও সঙ্গিন হবে। ক্ষতি গ্রস্থ মানুষের জন্য সরকারের যথেষ্ট বরাদ্দ থাকলেও তার সুষ্ঠু ও সুষম বন্টন নিশ্চিত করতে না পারলে নিম্ন আয়ের মানুষের দুর্দশা অব্যাহত থাকবে।

 


   আরও সংবাদ