ঢাকা, মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, , ১৩ সফর ১৪৪৩
Reg:C-125478/2015

ই-অরেঞ্জের মালিক দম্পতির দেশ ত্যাগে নিষেধাজ্ঞা


প্রকাশ: ১৮ অগাস্ট, ২০২১ ২২:২৬ অপরাহ্ন | দেখা হয়েছে ১৮২২ বার


ই-অরেঞ্জের মালিক দম্পতির দেশ ত্যাগে নিষেধাজ্ঞা

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ই-অরেঞ্জের মালিক সোনিয়া মেহজাবিন ও তার স্বামী মাসুকুর রহমানসহ পাঁচ জনের দেশ ত্যাগে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন আদালত। 

বুধবার (১৮ আগস্ট) ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট রাজেশ চৌধুরীর আদালত শুনানি শেষে এ আদেশ দেন। অপর আসামিরা হলেন-আমানউল্ল্যাহ, বিথী আক্তার, কাউসার আহমেদ।

জানা যায়, গুলশান থানার প্রতারণা ও ১১০০ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে করা মামলায় তদন্ত কর্মকর্তা আসামিদের দেশ ত্যাগে নিষেধাজ্ঞা চেয়ে আবেদন করেন। ওই আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিচারক এ আদেশ দেন।

অগ্রিম অর্থ পরিশোধের পরও মাসের পর মাস পণ্য না পাওয়ায় মঙ্গলবার গুলশান থানায় ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ই-অরেঞ্জের বিরুদ্ধে মামলা করেন তাহেরুল ইসলাম। 

উল্লেখ্য, অর্ডার করা পণ্য পেতে সোমবার (১৬ আগস্ট) রাজধানীর গুলশান-১ এর সড়ক অবরোধ করেন ই-অরেঞ্জের গ্রাহকরা। এ প্রতিষ্ঠানের শুভেচ্ছা দূত ছিলেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক ও সংসদ সদস্য মাশরাফি বিন মর্তুজা। তবে মাশরাফি বিন মর্তুজা এ বিষয়ে তার অবস্থান স্পষ্ট করে গণমাধ্যমে বক্তব্য দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, ‘ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইঅরেঞ্জের শুভেচ্ছা দূত ছিলেন তিনি। তবে তার মেয়াদ ইতোমধ্যেই শেষ হয়ে গেছে। তারপরও প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ ওঠার পর তিনি এর বিরুদ্ধে গ্রাহকদের মামলায় সহায়তা করেছেন।

‘প্রসঙ্গত, ইঅরেঞ্জ ২০০৭ সালে যাত্রা শুরু করে। সম্প্রতি একদল গ্রাহক তাদের টাকা নিয়ে সময়মতো পণ্য সরবরাহ না করার অভিযোগ এনে বিক্ষোভ করে। কয়েকজন মাশরাফির মিরপুরের বাসার সামনে ধর্নাও দেন। 

এ বিষয়ে বাংলাদেশ জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক ও সংসদ সদস্য মাশরাফি বিন মর্তুজা একটি গণমাধ্যমকে বলেন, ‘ই-অরেঞ্জের সঙ্গে আমার ছয় মাসের চুক্তি ছিল। সেটা শেষ হয়েছে। আমি এখন এটির সঙ্গে নেই। তবুও একজন গ্রাহক বলছে, তাদের পাশে আমাকে থাকতেই হবে। এটার তো আইনগত জায়গায় খুব বেশি কিছু করার নেই। তবুও সাধারণ মানুষের কারণে কথা বলেছি। আমি প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি, তাদের পাশে দাঁড়াবো।’


   আরও সংবাদ